সিগারেট ছাড়লেই বেতনসহ ছুটি!

ধূমপান না করলে কর্মক্ষেত্রে বেশি মনোযোগ দেয়া যায়। জাপানের এক প্রতিষ্ঠান এমনই দাবি করেছে। তাই যারা ধুমপান করেন না, তাদেরকে অতিরিক্ত ছুটি দেয়া হবে বলে ঘোষণা করেছে ওই প্রতিষ্ঠান। অতিরিক্ত ছয়দিন বেতনসহ ছুটি দেয়া হবে। সেপ্টেম্বর থেকেই এই নিয়ম চালু করেছে প্রতিষ্ঠানটি।
জাপানের পিয়ালা ইন্ক. নামে ওই প্রতিষ্ঠানের অধুমপায়ী কর্মীরা অভিযোগ জানান যে, ধুমপায়ীদের চেয়ে তারা বেশি কাজ সময় কাজ করছেন। কারণ সিগারেট খাওয়ার জন্য বাকিরা অনেক সময় ব্যয় করে থাকেন। এরপরই এই অভিনব উদ্যোগ নেয় ওই সংস্থাটি।
সংস্থার মুখপাত্র হিরোতাকা মাতসুশিমা জানিয়েছেন, চলতি বছরের শুরুর দিকে সাজেশন বক্সে এরকমই একটি দাবি রাখেন এক কর্মী। সংস্থার সিইও তাকাও আসুকা তাই অধুমপায়ী কর্মীদের ছয় দিনের সবেতন ছুটি দিতে রাজি হন।
জাপানের টোকিওতে এক বহুতল অফিস ভবনের ২৯ তলায় সংস্থার প্রধান কার্যালয়। সিগারেট ব্রেক নিতে গেলে অফিসের কর্মীদের বেসমেন্টে যেতে হয়। অর্থাৎ প্রত্যেকটা সিগারেট ব্রেকের জন্য অন্তত ১৫ মিনিট করে সময় বরাদ্দ থাকে। সেজন্যই ক্ষোভ প্রকাশ করেন অন্যরা। ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত সংস্থার ১২০ জন কর্মী সবেতন ছুটি উপভোগ করেছেন।
সিইও আসুকা বলেন, এইভাবে কর্মীদের ধুমপান ছাড়তে উৎসাহ দিতে চান তিনি। ইতোমধ্যেই এই ছুটির লোভে অনেকে সিগারেট ছেড়ে দিয়েছেন। এটাই জাপানের প্রথম সংস্থা নয়, যারা ধুমপানের বিরোধিতা করল। এর আগে গত জুলাই মাসে লসন ইনক. নামেও একটি প্রতিষ্ঠান তাদের প্রধান ও আঞ্চলিক কার্যালয়ে ধুমপান বন্ধ করে দেয়ে।
জুলাই মাসেই টোকিও গভর্নর ইউরিকো কোইকে প্রস্তাব দেন, ২০২০’এর অলিম্পিকের আগে যেন প্রকাশ্যে ধুমপান বন্ধ হয়। যদিও অনেকেই এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাপানের ২১.৭ শতাংশ মানুষ ধুমপান করে। সূত্র: ওয়েবসাইট

এই রকম আরো খবর